সর্বশেষ খবর
Home / পার্বত্য চট্টগ্রাম / মিতালী চাকমার কথা বিশ্বাস করছে?

মিতালী চাকমার কথা বিশ্বাস করছে?

 

 

মাহের ইসলাম:

সাধারণ জুম্ম, যাদের কোন রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতা নেই, তারা কি মিতালী চাকমার কথা বিশ্বাস করছে? কারণ, তারা তো এখন আর বোকা নেই, অনেক বুদ্ধিমান।

পার্বত্য চট্রগ্রামের যে কোন আন্দোলনে নারীরা এখনের পুরুষের ঢাল হিসেবে সামনে থাকে। তাদের হাতে থাকে লম্বা লাঠি, আর নারীর ঢালে আশ্রয় নেয়া পালোয়ানের হাতে থাকে ছোট্ট গুলতি। বছরের যে কোন সময়ে, যে কোন উপলক্ষ্যে আয়োজিত মিছিল বা প্রতিবাদে এখন নারীদের সরব উপস্থিতি নজর এড়ানোর উপায় নেই। জুম্মদের এমন উন্নতি অনেকের কাছেই কাম্য এবং নিঃসন্দেহে বুদ্ধিমত্তার পরিচায়ক।

যার বহিঃপ্রকাশ ঘটে – জুম্ম জাতিয়তাবাদীদের ঐক্যের স্বার্থে অনেক জুম্ম, বিশেষতঃ নারীদের চরম ত্যাগের, প্রতিনিয়ত সংঘটিত ঘটনাবলীতে । যেখানে, রেটিনা চাকমার মত প্রগতিশীল নারী নিজের পছন্দে সহযোদ্ধা সৈকত ভদ্রের সাথে বিয়ে করে, সংসার গড়তে পারেনি।

রাঙ্গামাটির জ্যোৎস্না চাকমাকে গলায় শিকল বেঁধে দুই মাস আটকে রেখে অবর্ণনীয় শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের শিকার হতে হয়েছিল। খাগড়াছড়ির দীপা ত্রিপুরার গণধর্ষণের ভিডিও পর্যন্ত মোবাইলে রেকর্ড করা হয়েছিল। জুম্ম জাতিয়তাবাদের স্বার্থে – কিছু নারীর ব্যক্তিস্বার্থ উপেক্ষার এমন উদাহরণ অসংখ্য দেয়া যাবে।

তবে, বলাই বাহুল্য, মহালছড়ির তিনজন মারমা ছাত্রীকে এক জায়গায় এক সন্ধ্যায় যখন ধর্ষণের পরেও যখন কেউ কোন প্রতিবাদের আওয়াজ তুলেনি – তখন বুঝতে বাকী থাকে না যে, পাহাড়ে নারীরা এখনো যতটা না মানুষ হিসেবে স্বীকৃত, তার চেয়ে অনেক বেশী কার্যোদ্ধারের যন্ত্রপাতি হিসেবে ব্যবহৃত। প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করার মোক্ষম অস্ত্র আর ব্যক্তিগত স্বার্থ হাসিলের সবচেয়ে পছন্দের হাতিয়ার হিসেবেই তাদেরকে বিবেচনা করা হয়।

তাই, প্রশ্নের উদ্রেক হয়, মিতালী চাকমা কি শুধুমাত্র তেমনি আরেকটি উদাহরণ হিসেবেই থেকে যাবে? নাকি, প্রতিটি জুম্ম নারীরও যে একজন মানুষ হিসেবে বিবেচিত হওয়ার অধিকার থাকতে পারে – তা অন্যরা বিশেষতঃ নারীরা অনুধাবন করবেন ? এই ঘটনায় এমন সৎসাহস কি দেখানোর সুযোগ আছে যে, জুম্ম নারীরা ভবিষ্যতে আর কখনো কারো ‘কার্যোদ্ধারের যন্ত্রপাতি’ কিংবা ‘স্বার্থ হাসিলের সবচেয়ে পছন্দের হাতিয়ার’ অথবা ‘প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করার মোক্ষম অস্ত্র’ হিসেবে ব্যবহৃত হতে চাইবে না ?

সূত্র: ফেসবুক

About admin

01580-242555

One comment

  1. চাকমা জাতি গুলো রাজনৈতিক উদ্দেশ্য করে তাদের মেয়েগুলোকেঅর্থাৎ তাদের মেয়ে জাতিগুলোকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য বেচে দিতেও দ্বিধাবোধ করে না।।পাহাড়ে লক্ষ্য করলে দেখা যাবে প্রতিনিয়ত নারীরা চাকমা উপজাতীয় ছেলেদের হাতে যে হারে নির্যাতন হয় নারীবাদের সেই দিকে লক্ষ নাই।।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*